যাকাত

2294

গবাদিপশুর যাকাত

গবাদিপশু

উট, গরু ও ছাগল

গবাদিপশুর যাকাতের হুকুম

ফরজ; এর প্রমাণ রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হাদীস, ‘উট, গরু ও ছাগলের মালিক যদি যাকাত না দেয়, তবে কিয়ামতের দিন এগুলো বৃহদাকায় ও বিশাল মোটা হয়ে হাজির হবে এবং ওই ব্যক্তিকে তার শিং দিয়ে ঢুঁ মারবে এবং খুর দিয়ে পাড়াবে। যখনই এর একদল শেষ করবে অন্যদল এসে হাজির হবে, এভাবেই চলতে থাকবে মানুষের মাঝে সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত।’(বর্ণনায় মুসলিম)

গবাদিপশুর যাকাত ফরজ হওয়ার শর্তাবলী

১- গবাদিপশুর মালিক হওয়ার পর এক বছর অতিক্রান্ত হওয়া। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,‘ সম্পদে পুরো এক বছর অতিক্রান্ত না হলে কোনো যাকাত নেই।’

২- প্রাকৃতিক চারণভূমি থেকে খাদ্য আহরণকারী হতে হবে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘সায়েমা উটের ক্ষেত্রে প্রতি চল্লিশটি উটে একটি বেনতে লাবুন দিতে হবে।’ সায়েমা উট হলো এমন উট যার খাদ্য হলো ভূমি থেকে প্রাকৃতিভাবে উদ্গত ঘাস।’

৩- গবাদিপশু এমন হতে হবে যার দুধ ও গর্ভজাত সন্তান দ্বারা উপকার লাভ করা উদ্দেশ্য হয় এবং তা এমন হবে না, যা বিশেষ কোনো কাজে ব্যবহার করা হয়, যেমন হালচাষ করা, সেচকর্মে ব্যবহার করা, পণ্যবহনের জন্য ব্যবহার করা।

কর্মে ব্যবহৃত উটে যাকাত নেই; কেননা তা তখন ব্যক্তির মৌলিক প্রয়োজনের মধ্যে শামিল বলে বিবেচিত হবে। আর যদি পশু ভাড়া দেয়া হয় তবে এর বিনিময়ে লব্ধ অর্থের ওপর যাকাত ফরজ হবে।

৪- গবাদিপশু নিসাব সংখ্যক হতে হবে।

গবাদিপশুর যাকাতের নিসাব

প্রথমত: উটের নিসাব ও তাতে প্রদেয় যাকাত

আনাস রাযি. থেকে বর্ণিত, আবু বকর রাযি. তাকে লিখেছেন যে, ‘এটা হলো যাকাতের আবশ্যিক বিধান, যা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মুসলমানদের উপর ফরজ করেছেন, আর এ ব্যাপারে আল্লাহ তাআলা তার রাসূলকে নির্দেশ দিয়েছেন। উটের সংখ্যা চব্বিশ অথবা তার নিচে হলে যাকাত হিসেবে বকরি দিতে হবে, প্রতি পাঁচ উটে একটি করে বকরি। আর উটের সংখ্যা ২৫ থেকে ৩০ পর্যন্ত হলে একটি এক বছরের স্ত্রীউট, উটের সংখ্যা ৩৬ থেকে ৪৫ পর্যন্ত হলে একটি দু বছরের স্ত্রীউট, আর উটের সংখ্যা ৪৬ থেকে ৬০ পর্যন্ত হলে একটি তিন বছরের স্ত্রীউট। আর উটের সংখ্যা ৬১ থেকে ৭৫ পর্যন্ত হলে একটি চার বছরের স্ত্রীউট যাকাত হিসেবে দিতে হবে। আর যার মাত্র চারটি উট রয়েছে, তার কোনো যাকাত নেই। কিন্তু যদি উটের মালিক ঐচ্ছিকভাবে দেয়। তবে যখন উটের সংখ্যা পাঁচটি হয়ে যাবে তখন একটি বকরি যাকাত হিসেবে দিতে হবে।’(বর্ণনায় বুখারী)

উটের নিসাব ও যাকাত

যাকাতের পরিমাণ

উটের সংখ্যা

৫: ৯

একটি ছাগল

১০: ১৪

দুটি ছাগল

১৫: ১৯

তিনটি ছাগল

২০: ২৪

চারটি ছাগল

২৫: ৩৫

এক বছর বয়সী একটি

স্ত্রীউট

৩৬: ৪৫

দু’বছর বয়সীএকটি স্ত্রীউট

৪৬: ৬০

তিন বছর বয়সী একটি স্ত্রীউট

৬১: ৭৫

চার বছর বয়সী একটি

স্ত্রীউট

৭৬: ৯০

দু’বছর বয়সী দুটি স্ত্রীউট

৯১: ১২০

তিন বছর বয়সী দুটি স্ত্রীউট

১২০:....

প্রতি চল্লিশ উটে এক বছর বয়সী একটি স্ত্রীউট, আর প্রতি পঞ্চাশ উটে তিন বছর বয়সী একটি স্ত্রীউট

তৃতীয়ত: ছাগলের নিসাব ও তাতে যাকাতের পরিমাণ

মুয়ায ইবনে জাবাল রাযি. বলেন, ‘রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাকে ইয়েমেনে পাঠালেন। তিনি আমাকে নির্দেশ দিলেন, আমি যেন প্রতি ত্রিশ গরুতে এক বছর বয়সী একটি গরু ও প্রতি চল্লিশ গরুতে দু’বছর বয়সী একটি গরু যাকাত হিসেবে নিই।’(বর্ণনায় আবু দাউদ)

গরুর নিসাব ও যাকাত

যাকাতের পরিমাণ

উটের সংখ্যা

30: 39

এক বছর বয়সী একটি গরু

40: 59

দু’বছর বয়সী একটি গরু

60: 69

একবছর বয়সী দুটি গরু

70: 79

একবছর বয়সী একটি ও দু’বছর বয়সী একটি গরু

তৃতীয়ত: ছাগলের নিসাব ও তাতে যাকাতের পরিমাণ

আনাস রাযি. থেকে বর্ণিত উল্লিখিত হাদীসে এসেছে, ‘প্রকৃতিক চারণভূমিনির্ভর ছাগলের ক্ষেত্রে যদি একশ বিশের অধিক হয় তাহলে দু’শ পর্যন্ত দুটি ছাগল দিতে হবে। আর যদি দু’শ এর অধিক হয় তাহলে তিনশ পর্যন্ত তিনটি ছাগল প্রদেয়। আর যদি তিনশ ছাগলের অধিক হয় তাহলে প্রতি একশ’তে একটি করে ছাগল দিতে হবে। আর যদি চল্লিশটির কম হয় তাহলে তাতে যাকাত নেই, তবে যদি ছাগলের মালিক এমনিতেই দিতে চায়।’(বর্ণনায় বুখারী)

ছাগলের নিসাব ও তাতে প্রদেয় যাকাত

যাকাতের পরিমাণ

উটের সংখ্যা

40: 120

একটি ছাগল

121: 200

দু’টি ছাগল

201: 300

তিনটি ছাগল (এর অতিরিক্ত হলে প্রতি একশ’তে একটি করে ছাগল দিতে হবে)